আজ বৃহস্পতিবার, ৬ মাঘ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ, ১৯ জানুয়ারী ২০১৭ খ্রিস্টাব্দ
ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন লাইভ টিভি লাইভ রেডিও সকল পত্রিকা যোগাযোগ
শিরোনাম : কুয়ালালামপুরে রোহিঙ্গা ইস্যুতে মুসলিম দেশগুলোর বৈঠক       শুক্রবার স্টার সিনেপ্লেক্সে মুক্তি পাচ্ছে ‘ট্রিপল এক্স’       বেলাল-পড়শী গাইলেন ‘জল শ্যাওলা’তে        দায়িত্ব হস্তান্তরের পূর্বের ভাষণে ট্রাম্পকে উদ্দেশ্য করে যা বললেন ওবামা       ভারতে সড়ক দূর্ঘটনায় ১৫ স্কুল শিক্ষার্থী নিহত       ব্লগার অভিজিৎ হত্যা: ২২ ফেব্রুয়ারি মামলার প্রতিবেদন দাখিল       ২০১৬ সাল ছিল ১০০ বছরের মধ্যে উষ্ণতম বছর      
হরেক গুণের মধু
Published : Sunday, 25 December, 2016 at 4:10 PM, Count : 32
হরেক গুণের মধুভোরের ডাক ডেস্ক: মধুতে অনেক ধরনের উপাদান থাকে, তার একটি উপাদান স্নায়ুকে প্রাকৃতিক ভাবে শিথিল করতে পারে। মধুতে ফ্রুকটোজ এবং গ্লুকোজ থাকে যা রক্তে খুব দ্রুত শোষিত হয়। গ্লুকোজ নিউরনের জন্য অত্যাবশ্যকীয় একটি উপাদান। একারণেই শারীরিক বা মানসিক অবসাদের ক্ষেত্রে মধু পান করার পরামর্শ দেয়া হয়। এছাড়াও যাদের হৃদরোগের সমস্যা, পেশির ঘাটতি এবং অজ্ঞান হয়ে যাওয়ার সমস্যা আছে তাদের মধু গ্রহণের পরামর্শ দেয়া হয়। মধু ফ্ল্যাভনয়েড, এনজাইম, ক্যারোটিনয়েড, ফেনল এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে সমৃদ্ধ। মধুর প্রশান্তিদায়ক এবং রিলাক্সিং প্রভাব ঘুমের জন্য সহায়ক। মধুর বিভিন্ন ব্যবহারের বিষয়ে জেনে নিই চলুন।

মধুতে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল, অ্যান্টিসেপ্টিক, অ্যান্টি-ইনফ্লামেটরি উপাদান থাকে এবং রিলাক্সিং সাপোর্ট দিতে পারে মধু। এজন্যই -

১। পেপটিক আলসারের রোগীদের উপসর্গের তীব্রতা কমতে সাহায্য করে মধু। খালি পেটে ১ চা চামচ মধু খেতে পারেন এবং এর ১ ঘন্টা পর অন্য খাবার খান।

২। গলার যন্ত্রণা কমাতে, জ্বর কমাতে এবং কাশি দূর করতে সাহায্য করে মধু। এজন্য মধুর সাথে লেবুর রস মিশিয়ে গ্রহণ করতে পারেন।

৩। সকালে ১ চামচ মধু আপনাকে সারাদিনে অনেক বেশি এনার্জেটিক থাকতে সাহায্য করবে।

৪। পোড়া বা ক্ষত ভালো করতেও সাহায্য করে মধুর অ্যান্টিসেপ্টিক গুনাগুণ। মধুর অ্যান্টিসেপ্টিক উপাদান পুনরায় ইনফেকশন হওয়া প্রতিরোধ করে এবং ত্বকের মেরামতের কাজকে দ্রুত করে। ছোটখাট কাটাছেঁড়ার নিরাময় ও সংক্রমণ রোধেও চমৎকার কাজ করে মধু।

৫। মধু পরিপাক তন্ত্রের কাজের উন্নতি ঘটায় বলে কোষ্ঠকাঠিন্যতে আক্রান্তদের মধু গ্রহণের পরামর্শ দেয়া হয়।

৬। আয়রন ও ক্যালসিয়ামের মত পুষ্টি উপাদানের শোষণে সাহায্য করে মধু। এছাড়াও মধু হাড়ের ভর রক্ষায় সাহায্য করে। এজন্য ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবারের সাথে মধু খাওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়।

৭। মধুতে অলিগোস্যাকারাইড (চেইন সুগার) থাকে বলে প্রিবায়োটিক খাদ্য হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

৮। মধুতে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে বলে ক্যান্সার প্রতিরোধে সাহায্য করে। নিউরোডিজেনারেটিভ ডিজিজ, ইনফ্লামেটরি ডিজিজ এবং মস্তিষ্ক ও হার্টের রোগ প্রতিরোধেও সাহায্য করে। ফ্রি র‍্যাডিকেলের কারণে সৃষ্ট কোষের ক্ষতি কমাতে সাহায্য করে মধু।

৯। গরম দুধের সাথে মধু মিশিয়ে পান করলে স্নায়ু শান্ত হয়, ঘুম আসতে সাহায্য করে এবং উদ্বিগ্নতা দূর করতে সাহায্য করে।প্রিয়  


« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


কাগজে যেমন ওয়েবেও তেমন
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
সোস্যাল নেটওয়ার্ক
সম্পাদক, প্রকাশক ও মুদ্রাকর : কে.এম. বেলায়েত হোসেন
মেসার্স পিউকি প্রিন্টার্স, নব সৃষ্ট প্লট নং ২০, তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা থেকে মুদ্রিত এবং ৪-ডি, মেহেরবা প্লাজা, ৩৩ তোপখানা রোড, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত।
বার্তা বিভাগ : ৯৫৬৩৭৮৮, পিএবিএক্স-৯৫৫৩৬৮০, ৭১১৫৬৫৭, ফ্যাক্স : ৯৫১৩৭০৮ বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন ঃ ৯৫৬৩১৫৭
ই-মেইল : bhorerdk@bangla.net, adbhorerdak@gmail.com,  Developed & Maintenance by i2soft
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি