আজ বৃহস্পতিবার, ১৬ চৈত্র ১৪২৩ বঙ্গাব্দ, ৩০ মার্চ ২০১৭ খ্রিস্টাব্দ
ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন লাইভ টিভি লাইভ রেডিও সকল পত্রিকা যোগাযোগ
শিরোনাম : কুসিক নির্বাচনে ভোট শেষ, গননা চলছে       আসলেই কি কম্পিউটার স্ক্রিন দৃষ্টিশক্তির ক্ষতি করে ?       কোন্দল করে দলের অনিবার্য বিজয় নস্যাৎ করলে বহিষ্কার: সেতুমন্ত্রী        নারীদের নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য কংগ্রেস নেতার       ভূমধ্যাসাগরে নৌকা ডুবি : ১৪৬ অভিবাসন প্রত্যাশীর মৃত্যুর শঙ্কা       বাগদাদে গাড়ি বোমা হামলা : নিহত ১৫       আফগানিস্তানে সামরিক বাহিনীর অভিযানে ২৭ জঙ্গি নিহত      
রাবি ক্রপ সায়েন্স বিভাগে স্বাভাবিক কার্যক্রমে ব্যাপক স্থবিরতা
Published : Wednesday, 11 January, 2017 at 5:52 PM, Count : 64
রাবি ক্রপ সায়েন্স বিভাগে স্বাভাবিক কার্যক্রমে ব্যাপক স্থবিরতাএস.এম.আল-আমিন, রাবি সংবাদদাতা: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) ক্রপ সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি বিভাগের দুই-তৃতীয়াংশের অধিক শিক্ষক সভাপতির পদচ্যুতির দাবীতে দফায় দফায় আন্দোলন কর্মসূচি পালন করে আসছে। এতে বিভাগের স্বাভাবিক কার্যক্রমে স্থবিরতা দেখা দিয়েছে।

আন্দোলনরত শিক্ষকরা বিভাগের একাডেমীক ও প্লানিং কমিটির মিটিং বর্জন করার ফলে বিভাগের অনেক উন্নয়নমূলক কার্যক্রম আটকে আছে বলে মনে করেন শিক্ষার্থীরা। সাধারণ শিক্ষার্থীরা প্রশাসনের দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

আন্দোলনরত শিক্ষকদের সূত্রে জানা যায়, ক্রপ সায়েন্স বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. মোসল্হে উদ্দীন আর্থিক অনেক দুর্নীতি, বিভাগে একঘেয়েমী আধিপত্য, শিক্ষক ছাত্রদের ঐক্য নষ্ট করে নিজের মতবাদে বিশ্বাসী করে ছাত্রদের মধ্য গ্রুপিং করা, অন্য শিক্ষকদের সাথে অসদাচরণ- এইসব অভিযোগ এনে শিক্ষকরা তার পদচ্যুতি চেয়ে কর্মবিরতি সহ বেশ কিছু আন্দোলন করে আসছে। বিশ্ববিদ্যালয় শীতকালীন অবকাশ শেষ হলে আরও বৃহত্তর আন্দোলনের হুমকিও দিয়ে রেখেছে আন্দোলনকারীরা। 

এছাড়া বিভাগের কম্পিউটার অপারেটর সভাপতি মোসলেহ উদ্দীনের বিরুদ্ধে সাংবাদিকদের তথ্য দেওয়ায় বিভাগের কম্পিউটার নিজের আয়ত্তে নেওয়া হয়েছে বলেও জানান অপারেটর সইজ উদ্দীন।    

তবে বিভাগের সভাপতি প্রফেসর ড. মোসলেহ উদ্দীন তার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করে আসছেন এবং কম্পিউটার সিলগালা করা হয়েছে বলে জানান।

বিভাগের বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী বলেন, আমরা বিভাগের এমন অস্বাভাবিক পরিস্থিতির বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের মাধ্যমে দ্রুত অবসান চাই। কেননা, এতে আমাদের একাডেমীক ও গবেষণা কাজে অনেক ব্যাঘাত ঘটছে।

এসব বিষয়ে প্রফেসর ড. খাইরুল ইসলাম বলেন, তিনি যদি প্রতীকী এই আন্দোলনে স্বেচ্ছায় পদত্যাগ না করেন। বিশ্ববিদ্যালয় ছুটি শেষে আন্দোলনরত সবার আলোচনা সাপেক্ষে লাগাতার কঠোর কর্মসূচী আসতে পারে। 


« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


কাগজে যেমন ওয়েবেও তেমন
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
সোস্যাল নেটওয়ার্ক
সম্পাদক, প্রকাশক ও মুদ্রাকর : কে.এম. বেলায়েত হোসেন
মেসার্স পিউকি প্রিন্টার্স, নব সৃষ্ট প্লট নং ২০, তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা থেকে মুদ্রিত এবং ৪-ডি, মেহেরবা প্লাজা, ৩৩ তোপখানা রোড, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত।
বার্তা বিভাগ : ৯৫৬৩৭৮৮, পিএবিএক্স-৯৫৫৩৬৮০, ৭১১৫৬৫৭, ফ্যাক্স : ৯৫১৩৭০৮ বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন ঃ ৯৫৬৩১৫৭
ই-মেইল : bhorerdk@bangla.net, adbhorerdak@gmail.com,  Developed & Maintenance by i2soft
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি