আজ বৃহস্পতিবার, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭ খ্রিস্টাব্দ
ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন লাইভ টিভি লাইভ রেডিও সকল পত্রিকা যোগাযোগ
শিরোনাম : মুক্তিযুদ্ধের ন্যায় রোহিঙ্গা সংকটেও সারা বিশ্বের সমর্থন পেয়েছি : প্রধানমন্ত্রী       শৃঙ্খলাবিধির ফলে ন্যায়বিচার কালের গর্ভে হারিয়ে যাবে : রিজভী       দলীয় নেতা-কর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান : প্রধানমন্ত্রী       থার্টি ফার্স্টে বন্ধ থাকবে বার, বৈধ অস্ত্র বহন নিষিদ্ধ       মগবাজার ফ্লাইওভারে চলন্ত বাসে আগুন       রাজধানীতে সেলুনে বিস্ফোরণে দগ্ধ ৩       'আজেবাজে জিদ' করেন না মাশরাফি      
ব্র্যান্ডের শো-রুমে বিক্রি রমরমা
Published : Monday, 19 June, 2017 at 8:37 PM, Count : 431
নাজিউর রহমান সোহেল : মালেশিয়ায় পড়াশোনা করছেন মাকসুদ মাতব্বর। পরিবারের সঙ্গে ঈদ কাটাতে দীর্ঘ এক বছর পর তার বাংলাদেশে আসা। গতকাল রোববার ভোরে ঢাকায় ল্যান্ড করেছেন তিনি। রাজধানীর নিউমার্কেটের চাঁদনি চক ও বসুন্ধরা সিটি শপিং মল থেকে ভাই-বোন ও মায়ের জন্য কিছু কেনাকাটা করতে এসেছেন।
মাকসুদ জানালেন, কাল প্রিয় জন্মস্থান ভোলায় যাব। পরিবারের সঙ্গে এবার ব্যতিক্রম একটি ঈদ কাটাতে সেই মালেশিয়া থেকে চলে আসলাম। মালেশিয়া থেকে অনেক কিছু কেনাকাটা হয়েছে, তবে বাংলাদেশি পোশাকের কদর বেশি। বিশেষ করে দেশীয় সুতির পোশাক সবার কাছে প্রিয়। তাই বসুন্ধরা থেকে বোনের জন্য একটি থ্রি পিস, মায়ের জন্য শাড়ি ও ভাইয়ের জন্য প্যান্ট ও শার্ট কিনলাম। সবগুলোই অনেক পছন্দ করার মতো।
গত শুক্র ও শনিবার জমজমাট বেচা-বিক্রি হলেও গতকাল রোববার তা ছিল অনেকটা স্বাভাবিক। কারণ এদিন ছিল সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস। সেই হিসেবে কেনাবেচা আগের দু’দিনের মতো হয়নি। এদিন বিকেলে বৃষ্টি হওয়ায় বেচাকেনা কিছুটা কম ছিল। তবে সকাল ১০টার পর থেকে বিকেল নাগাদ বিক্রি ভালো হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিক্রেতারা। এরপর বিরতি দিয়ে ইফতারের পর কেনাকাটা ফের জমে উঠেছে বিপণিবিতানগুলো।
রোববার ছুটির দিন না থাকলেও ফুটপাত থেতে অভিজাত বিপণিবিতান, পাড়া-মহল্লার বুটিক হাউস থেকে নামিদামি ব্র্যান্ডের আউটলেটথ সর্বত্রই ছিল ঈদের কেনাকাটার আমেজ। রাজধানীর নিউমার্কেট, চাঁদনিচক, গাউছিয়া, এলিফ্যান্ট রোড, ইস্টার্ন প্লাজা, শাহবাগের আজিজ সুপার মার্কেট, পান্থপথের বসুন্ধরা সিটি মার্কেট ঘুরে ক্রেতা-বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেল, কর্মদিবসে গতকাল রোববারও বেশ দারুণ জমেছে ঈদের কেনাকাটা। ঈদ উপলক্ষে এসব বিপণিবিতানের বাইরে আলোকসজ্জা, ভেতরে নানা রঙের কাপড় সজ্জিত করা হয়েছে। ক্রেতাদের আকর্ষণ করতে সব বিপণিবিতানেই রয়েছে নানা ছাড় ও পুরস্কার।
রোববার দুপুর দেড়টার দিকে নিউমার্কেট এলাকা ঘুরে দেখা যায়, আগন্তুক ক্রেতারা কেনাকাটায় বেশ মনোযোগী। পছন্দের অনেক দোকানগুলোতে ক্রেতাদের ব্যাপক ভিড়, তিল পরিমাণ জায়গা নেই। ছোট-বড় সব দোকানেই ক্রেতার চাপ।
দোকানিরা জানালেন, গতকাল রোববার ছুটির দিন না থাকলেও বেচাকেনা খারাপ যাচ্ছে না। অনেকে আবার বেচাবিক্রি মন্দাভাব বলেও জানালেন। নিউমার্কেটে শাড়ি, রেডিমেড সালোয়ার-কামিজ এবং শিশুদের পোশাক বেশি বিক্রি হচ্ছে। এখানে দরদাম করে সাধ্যের মধ্যে সাধ মিটিয়ে কেনা যায়। চাঁদনিচকের মৌমি ফ্যাশনের বিক্রয়কর্মীরা জানালেন, গতবারের চেয়ে এবার দাম কিছুটা বেশি হলেও অন্যান্য দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির সঙ্গে তা বেশি নয়। তবে ক্রেতারা প্রতিনিয়তই অভিযোগ করছেন। বলছেন, এবার পোশাকের দাম অনেক চড়া।
মিরপুর থেকে আসা ক্রেতা ফারজানা জানালেন, গত ঈদে যেসব থ্রিপিস ১০০০ থেকে দেড় হাজার মধ্যে কিনেছেন, সেটি এবার প্রায় ২০০০ থেকে ২৭০০ টাকা। নিউমার্কেটের অনেক দোকানের সামনেই একদর সাইন বোর্ড নজরে এসেছে। তবে সেখানেও দরদাম করে কিছুটা ছাড় পাওয়া যাচ্ছে। রাজধানীর অন্যতম জনপ্রিয় মার্কেট চাঁদনিচক ও গাউছিয়ায় তরুণীদের ভিড়। হাল ফ্যাশনের পোশাক থেকে শুরু করে অলঙ্কার ও প্রসাধনী মেয়েদের যাবতীয় সবকিছুই রয়েছে এ দুই বিপণিবিতানগুলোতে।
চাঁদনিচক মার্কেটের শাড়ি ও থ্রিপিস ব্যবসায়ী বোরহানুল হক জানালেন, মূলত ১৫ রোজার পর থেকে থেকেই ঈদ কেনাকাটা জমে উঠেছে। আর বেশি দিন বাকি নেই। এই দিনগুলোতেও ভালো কাটতি হবে-এমনটাই আশা তার।
কাওরান বাজারের বসুন্ধরা সিটি শপিংমলের দেশি-বিদেশি পোশাকের দোকানগুলোতে সারাক্ষণই ছিল নানা বয়সী ক্রেতার ভিড়। বিক্রিও হয়েছে ভালো। তিল ধারণের ঠাঁই ছিল না বসুন্ধরা সিটির আড়ং ও দেশিদশের কর্ণারে। বিকেলের দিকে বসুন্ধরা সিটিতে প্রবেশ করতে হয়েছে লাইন ধরে। বিক্রেতারাও মহাব্যস্ত।
ফ্যাশন হাউজ দরজিবাড়িক বিক্রয়কর্মীরা জানালেন, রোজার প্রথম ১৫ দিন বিক্রি ছিল অনেক মন্দাভাব গত সপ্তাহ থেকে এখন পুরোপুরি জমেছে। বিশেষ করে গত শুক্র ও শনিবার থেকে খুব ভালো বিক্রি হচ্ছে। কোনো ধরনের বিপর্যয় না থাকলে এ বিক্রি আগামী শেষ রোজ পর্যন্ত চলবে বলে আশা করছি।
ক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, একটু বেশি দামের হলেও ক্রেতারা কোয়ালিটি সম্পন্ন জিনিস নিতে আগ্রহী। কারণ সেটি পড়তে যেমন মজা, অন্যদিকে কোয়ালিটির বিবেচনা করলে অতুলনীয়। তাই তারা অতি পরিচিত কিংবা নতুন নতুন ব্র্যান্ডের শো-রুমগুলোতে কিনতে স্বাচ্ছন্দ্যেবোধ করেন।
এদিকে, ঈদ কেনাকাটায় আগন্তুক মানুষগুলোর চাপে রাজধানীর নিউমার্কেট থেকে পান্থপথ এলাকায় সকাল থেকেই তীব্র যানজট শুরু হয়। যানজটে আটকে পড়েছেন যাত্রাবাড়ী থেকে আসা শিহাব। তিনি জানালেন, নিউমার্কেট গিয়ে কেনাকাটা শেষ করলাম। এখন ছেলের জন্য কিনতে যাচ্ছি বসুন্ধারায়। ঘন্টাব্যাপী যানজটে পড়ে আছি। কখন বসুন্ধারায় যাব, কোনো গ্যারান্টি নেই।






« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


কাগজে যেমন ওয়েবেও তেমন
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
সোস্যাল নেটওয়ার্ক
সম্পাদক, প্রকাশক ও মুদ্রাকর : কে.এম. বেলায়েত হোসেন
মেসার্স পিউকি প্রিন্টার্স, নব সৃষ্ট প্লট নং ২০, তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা থেকে মুদ্রিত এবং ৪-ডি, মেহেরবা প্লাজা, ৩৩ তোপখানা রোড, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত।
বার্তা বিভাগ : ৯৫৬৩৭৮৮, পিএবিএক্স-৯৫৫৩৬৮০, ৭১১৫৬৫৭, ফ্যাক্স : ৯৫১৩৭০৮ বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন ঃ ৯৫৬৩১৫৭
ই-মেইল : bhorerdk@bangla.net, adbhorerdak@gmail.com,  Developed & Maintenance by i2soft
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি