আজ রবিবার, ৫ ভাদ্র ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২০ আগস্ট ২০১৭ খ্রিস্টাব্দ
ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন লাইভ টিভি লাইভ রেডিও সকল পত্রিকা যোগাযোগ
শিরোনাম : মণিরামপুর প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক এম.এ রাজ্জাকের ইন্তেকাল       ভাঙ্গায় ৪ লাখ জাল টাকা সহ আটক ৪       পাইকগাছায় নিম্নমানের ইট দিয়ে রাস্তা নির্মাণকালে এলাকাবাসীর তোপে কাজ বন্ধ        নির্দিষ্ট স্থানে পশু কোরবানি কার্যক্রম বাস্তবায়নে খুলনা মহানগরীর বিশেষ সভা       ‘সিদ্ধিরগঞ্জ এর সরকারি সম্পত্তি’ নামক অ্যাপসের উদ্বোধন       লালপুরে ছাত্রদল সভাপতিকে পেটালো যুবলীগ সভাপতি       ঘোড়াঘাটে বানভাসীদের মাঝে ঔষধ ও শুকনা খাবার বিতরণ      
কালিগঙ্গা নদীর ফসলি জমিতে চলছে মাটি কাটার মহোৎসব
Published : Monday, 19 June, 2017 at 8:59 PM, Count : 75
কালিগঙ্গা নদীর ফসলি জমিতে চলছে মাটি কাটার মহোৎসবসিংগাইর (মানিকগঞ্জ) সংবাদদাতা : সিংগাইর উপজেলার চান্দহর ইউনিয়নের চক পালপাড়া মৌজার কালিগঙ্গা নদী তীরবর্তী ফসলি জমিতে চলছে মাটি কাটার মহোৎসব। স্থানীয় সরকার দলীয় নেতা-কর্মীরা এ ফসলি জমি শ্রেণি পরিবর্তন না করে মাটি বিক্রি করে হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা। ফলে আশপাশের ফসলি জমিসহ চক পালপাড়া গ্রাম ভাঙনের আশংকা করছেন জমির মালিকেরা।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, কালীগঙ্গা নদীর ভঙন কবলিত ফতেপুর-বার্তা গ্রামের দক্ষিনে চক পালপাড়া মৌজায় প্রায় ১০ বিঘা ফসলি জমি থেকে মাটি কেটে নেয়া হয়েছে। সেই সাথে পার্শ্ববর্তী নদী তীরবর্তী ফসলী জমিতে চলছে ভেকু লাগিয়ে অবাধে মাটি কাটা। স্থানীদের অভিযোগ গত বছর চলতি মৌসুমে এ মাটি কাটা চক্রটি প্রায় ১ কিলোমিটার নদীতীরবর্তী ফসলি জমির মাটি বিক্রি করে। ফলে অনেকের জমি নদী গর্ভে বিলীন হয়। গত বছরের মত এবারো ওই চক্রটির অন্যতম চান্দহর ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারন সম্পাদক ও চক পালপাড়া গ্রামের আব্দুল কুদ্দুছের পুত্র সেলিম রেজার নেতৃত্বে চলছে অবৈধ মাটি বিক্রির ধুম। গত ১৫ দিন  ধরে অব্যাহতভাবে মাটি কাটার ফলে আতংকিত হয়ে পড়ছেন পার্শ্ববর্তী ফসলি জমির মালিকেরা তাদের অভিযোগ, প্রথমে এ চক্রটি জমির মালিকদের মাটি কেনার প্রস্তাব দেয়। তাদের কথা না শুনলে পাশের জমি ঘেষে গভীর করে মাটি কেটে নেয়। এতে ফসলী জমি মালিকদের বিপদে পড়তে হয়। ফলে ভাঙনের ভয়ে মাটি বিক্রি করতে বাধ্য হন তারা। ইতিমধ্যে ওই এলাকার শুকুর মোল্লা, লেলিন মোল্লা, মোবারক ও বখতিয়ারের জমি থেকে মাটি কেটে সাবাড় করা হয়েছে। তাদের পাশের ফসলি জমির মালিক নূরুল ইসলাম, শাহাদাত, একশেদ আলী, লিপন শেখ, আব্দুল হালিম ও হারুন মোল্লা আতংকে রয়েছেন। কখন যেন এ মাটি চোর চক্র তাদের জমির দিকে কু-দৃষ্টি দেয়। সেই সাথে ফসলি জমি ভাঙ্গনের আশংকা করছেন তারা। জমির মালিক আব্দুল আলীম বলেন, নদী ভাঙ্গন রোধে বার্তা গ্রামে সরকার বাধ দিচ্ছেন আর এ এলাকায় সরকারি দলের নেতাকর্মীরা মাটি কেটে বিক্রি করছেন। দেখার যেন কেউ নেই। হারুন মোল্লা প্রতিবাদীসুরে বলেন, এলাকায় নেতারা মাটি কেটে বিক্রি করছে। আমার মত অনেককে চাপ দিচ্ছেন। মরে গেলেও জমি বিক্রি করব না। আল্লাহ যতটুকু রাখে রাখবে। মাটি কাটার কাজে সংশ্লিষ্ট সুপার ভাইজার মনির হোসেন মিন্টু বলেন, এসব মাটি ট্রলার যোগে নদীপথে জাজিরা- সাপেরচর ই্টভাটাশুলোতে বিক্রি করা হয়। নির্বিঘেœ এ মাটির ব্যবসা চালিয়ে যেতে প্রশাসনের বিভিন্নস্তরে অর্থকরী দিয়ে ম্যানেজ করতে হয় বলেও একটি সূত্র দাবি করেন।
মাটি ব্যবসার সাথে জড়িত অভিযুক্ত যুবলীগ নেতা সেলিম রেজা বলেন, স্থানীয় লোকজন তাদের জমি থেকে মাটি বিক্রি করছেন। আমি এর সাথে জড়িত নই। চান্দহর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শওকত হোসেন বাদল বলেন, বৈধভাবে স্থানীয় যুবলীগের সেলিম, হাসান, মিন্টু, নাসির ও রায়হান মাটির ব্যবসা করছেন। তবে শ্রেনী পরিবর্তন ও নদী কমিশনের চেয়ারম্যানের নির্দের্শ প্রসঙ্গ তুললে এড়িয়ে যান তিনি।  সহকারী কমিশনার (ভূমি) এলিনা আকতার বলেন, এভাবে তো মাটি বিক্রি করতে পারবে না। অবশ্যই অনুমতি নিতে হবে। এছাড়া মাটি কাটার কোন সুযোগ নেই। এ ব্যাপারে সিংগাইর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো.যুবায়ের বলেন, আইন ভঙ্গকরে যদি মাটি বিক্রি করা হয় তাহলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


কাগজে যেমন ওয়েবেও তেমন
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
সোস্যাল নেটওয়ার্ক
সম্পাদক, প্রকাশক ও মুদ্রাকর : কে.এম. বেলায়েত হোসেন
মেসার্স পিউকি প্রিন্টার্স, নব সৃষ্ট প্লট নং ২০, তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা থেকে মুদ্রিত এবং ৪-ডি, মেহেরবা প্লাজা, ৩৩ তোপখানা রোড, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত।
বার্তা বিভাগ : ৯৫৬৩৭৮৮, পিএবিএক্স-৯৫৫৩৬৮০, ৭১১৫৬৫৭, ফ্যাক্স : ৯৫১৩৭০৮ বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন ঃ ৯৫৬৩১৫৭
ই-মেইল : bhorerdk@bangla.net, adbhorerdak@gmail.com,  Developed & Maintenance by i2soft
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি