আজ শনিবার, ১০ আষাঢ় ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২৪ জুন ২০১৭ খ্রিস্টাব্দ
ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন লাইভ টিভি লাইভ রেডিও সকল পত্রিকা যোগাযোগ
শিরোনাম : কাবা শরীফে সন্ত্রাসী হামলার পরিকল্পনা নস্যাৎ       কাতারের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারে ১৩টি শর্ত       ভারত-ওয়েস্ট ইন্ডিজ ম্যাচ বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত       চীনে ভূমিধসে শতাধিক লোক নিখোঁজ       মেসি-নেইমারদের ন্যু ক্যাম্পে মুশফিক       সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মুখে হাসি ফুটালো ‘ভালোবাসি জামালপুর’       গণমাধ্যমকর্মীদেরকে খালেদার ‘বাদামি খামে’ ঈদ শুভেচ্ছা : বিভ্রান্তিকর পরিস্থিতি তৈরি      
মৃতপ্রায় ৫৩ নৌপথ খননের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে : নৌমন্ত্রী
Published : Monday, 19 June, 2017 at 9:49 PM, Count : 15
সংসদ রিপোর্টার : নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান বলেছেন, মৃতপ্রায় নৌপথগুলোকে সচল করার লক্ষ্যে প্রায় ১২ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে ৫৩টি নৌপথ খননের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। বর্তমানে ৩৬টি নৌপথ খননের কাজ চলমান আছে। গতকাল রোববার সংসদ অধিবেশনে টেবিলে উত্থাপিত প্রশ্নোত্তর পর্বে তিনি এ কথা বলেন। সরকারি দলের সংসদ সদস্য গোলাম দস্তগীর গাজীর লিখিত প্রশ্নের জবাবে নৌমন্ত্রী আরো জানান, বিশ্বব্যাংকের আর্থিক সহায়তায় প্রায় ৩ হাজার ২০০ কোটি টাকা ব্যয়ে নৌ টার্মিনাল নির্মানসহ চট্টগ্রাম-ঢাকা-আশুগঞ্জ ও সংযুক্ত ৯০০ কিলোমিটার নৌপথে ক্যাপিটাল ড্রেজিং করা হবে। এ ছাড়া ১৪টি ল্যান্ডিং স্টেশন উন্নয়ন, ৬টি ভেসেল সাইক্লোন শেল্টার, ৬টি প্যাসেঞ্জার টার্মিনাল, ২টি কার্গো টার্মিনাল এবং ৩০০ কিলোমিটার নেভিগেশনাল এইড স্থাপন করা হবে। নৌমন্ত্রী বলেন, দেশের নৌ যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নে নদী খননের লক্ষ্যে ১৪টি ড্রেজার কেনা হয়েছে। আরো ২০টি ড্রেজার কেনার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।
সরকারি দলের সদস্য মোহাম্মদ ইলিয়াছের লিখিত প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, কক্সবাজারের সেনাদিয়ায় একটি গভীর সমুদ্রবন্দর নির্মাণের প্রথম পর্যায়ের কাজ শুরু হওয়ার পর এটি বাস্তবায়নে প্াচ বছর প্রয়োজন। দ্রুতই এই কাজ শুরু হবে। আর দ্বিতীয় ও তৃতীয় পর্যায়ের কাজ যথাক্রমে ২০৩৫ সাল এবং ২০৫৫ সালে শেষ হবে বলে আশা করা হচ্ছে। এ ছাড়া জাইকা কর্তৃক মাতার বাড়িতে একটি বহুমুখী গভীর সমুদ্রবন্দর স্থাপনের সম্ভাব্যতা সমীক্ষা পরিচালিত হচ্ছে। স্বতন্ত্র সদস্য রহিম উল্লাহর প্রশ্নের জবাবে শাজাহান খান জানান, বর্তমানে বর্ষা মৌসুমে ৬ হাজার কিলোমিটার ও শুষ্ক মৌসুমে ৪ হাজার ৫০০ কিলোমিটার নৌপথ আছে। কোনো লঞ্চ কিংবা স্টিমারে পর্যাপ্ত জীবনরক্ষাকারী সরঞ্জাম না থাকলে ওই লঞ্চের যাত্রা স্থগিত করাসহ মামলা দায়ের করা হবে। এ ছাড়া প্রতিটি লঞ্চে ভয়েজ ডিক্লারেশন প্রদান বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। নৌযানে অতিরিক্ত যাত্রী বোঝাই বন্ধ ও নৌদুর্ঘটনা প্রতিরোধে ঢাকা নদীবন্দরসহ দেশের গুরুত্বপূর্ণ নদীবন্দরে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়।



« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


কাগজে যেমন ওয়েবেও তেমন
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
সোস্যাল নেটওয়ার্ক
সম্পাদক, প্রকাশক ও মুদ্রাকর : কে.এম. বেলায়েত হোসেন
মেসার্স পিউকি প্রিন্টার্স, নব সৃষ্ট প্লট নং ২০, তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা থেকে মুদ্রিত এবং ৪-ডি, মেহেরবা প্লাজা, ৩৩ তোপখানা রোড, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত।
বার্তা বিভাগ : ৯৫৬৩৭৮৮, পিএবিএক্স-৯৫৫৩৬৮০, ৭১১৫৬৫৭, ফ্যাক্স : ৯৫১৩৭০৮ বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন ঃ ৯৫৬৩১৫৭
ই-মেইল : bhorerdk@bangla.net, adbhorerdak@gmail.com,  Developed & Maintenance by i2soft
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি