আজ বুধবার, ৪ মাঘ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ১৭ জানুয়ারী ২০১৮ খ্রিস্টাব্দ
ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন লাইভ টিভি লাইভ রেডিও সকল পত্রিকা যোগাযোগ
শিরোনাম : ৬ মাসের মধ্যে ডাকসু নির্বাচন দেয়ার নির্দেশ       ডিএনসিসির উপ-নির্বাচন স্থগিত       কলম্বিয়ায় সামরিক হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত : নিহত ১০       রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন চুক্তির বিষয়ে জাতিসংঘ মহাসচিবের গভীর উদ্বেগ       উত্তরা মেডিকেলের ৫৭ শিক্ষার্থীর শিক্ষা কার্যক্রমে বাধা নেই       না.গঞ্জে ডাকাত সন্দেহে গণপিটুনিতে নিহত দুই       শাহজালালে ৩১৮ কার্টন সিগারেট জব্দসহ আটক ২      
জার্মানির নারী, পুরুষ, সমকামী ও তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের জন্য উন্মুক্ত মসজিদ
Published : Monday, 7 August, 2017 at 8:06 PM, Count : 169
জার্মানির নারী, পুরুষ, সমকামী ও তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের জন্য উন্মুক্ত মসজিদআন্তর্জাতিক ডেস্কঃ লাল-ইট পেঁচানো দালান, স্টেইনড-গ্লাসের জানালাখচিত সেন্ট জোহানেস দেখতে অনেকটা ঊনবিংশ শতাব্দীর প্রোটেস্ট্যান্ট গির্জার মতো। ভবনের পিছন দিকে গেলে দেখা যাবে একটি সিঁড়ি। ওই সিঁড়ি বেয়ে কয়েক ধাপ ওপরে ওঠলেই দেখা যাবে সাদা রংয়ের সাধারণ একটি ঘর। ঘরের প্রবেশমুখেই কয়েকটি জুতা সাজিয়ে রাখা এবং সেই ঘরটিতে কয়েকজন মানুষ নামাজ পড়ছেন। কারণ, এটি একটি মসজিদ। মুসলমানদের নামাজের জন্য এই ঘরটি যাজকদের কাছ থেকে ভাড়া নেয়া হয়েছে, কিন্তু পাশাপাশি গির্জার কার্যক্রমও চলছে।

কিন্তু মসজিদটি যে শুধু তার অবস্থানের জন্য ব্যতিক্রম তা নয়। বার্লিনের নতুন এই মসজিদটির অন্যতম বৈশিষ্ট্য হলো-এখানে নারী ও পুরুষ একসাথে নামাজ আদায় করেন। এমনকি শুক্রবারের নামাজের ইমামতি করেন নারীরা। এছাড়া সমকামী এবং তৃতীয় লিঙ্গের মানুষরাও এই মসজিদে অবাধে আসতে পারেন।

"আমাদের মসজিদ সবার জন্য খোলা" বলছেন মসজিদটির প্রতিষ্ঠাতা সায়রা অ্যাটেস। তুর্কী বংশোদ্ভুত এই জার্মান নাগরিক নারীদের অধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে কাজ করেন।

"প্রত্যেক সমাজের মানুষ এখানে আসতে পারবেন। আমরা ওপরওয়ালা নই। আমরা জানিনা কে ভালো মুসলিম, কে খারাপ। যে কেউ এখানে আসতে পারে, সে সমকামী নাকি হিজড়া সে প্রশ্ন করার আমরা কেউ নই"- বলেন সায়রা অ্যাটেস।

দ্য ইবনে রুশদ গ্যেথে মসজিদ কর্তৃপক্ষ বলছে, মুসলিমদের প্রতি অন্য ধর্মের মানুষদের ধ্যান ধারণা পাল্টানোর লক্ষ্যে এই মসজিদ। তবে এই মসজিদটি ঘিরে ব্যাপক সমালোচনাও তৈরি হয়েছে। মিস আটেস শখানেক হত্যার হুমকি পেয়েছেন। বিশেষ করে আরব বিশ্ব ও তুরস্ক থেকে চরমপন্থীদের হুমকি এসেছে। এমনকি তুরস্কের একটি টিভিতে ভুয়া খবরও ছড়ানো হয় যে ওই মসজিদে কোরআন নিচে ফেলে অবমাননা করা হয়েছে।

তুরস্কের ধর্মবিষয়ক কর্তৃপক্ষ এবং মিশরের কর্মকর্তারা বলছেন, ওই মসজিদে যা হয় তা 'ইসলামিক নয়'। গাম্বিয়া থেকে জার্মানি বেড়াতে আসা এক মুসলিম নাগরিকের মতে "মসজিদটিতে নারী ও পুরুষ একসাথে নামাজ পড়ছে। নারী-পুরুষ একসাথে নামাজ প্রার্থনায় বিঘ্ন ঘটাতে পারে"।


« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


কাগজে যেমন ওয়েবেও তেমন
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
সোস্যাল নেটওয়ার্ক
সম্পাদক, প্রকাশক ও মুদ্রাকর : কে.এম. বেলায়েত হোসেন
মেসার্স পিউকি প্রিন্টার্স, নব সৃষ্ট প্লট নং ২০, তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা থেকে মুদ্রিত এবং ৪-ডি, মেহেরবা প্লাজা, ৩৩ তোপখানা রোড, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত।
বার্তা বিভাগ : ৯৫৬৩৭৮৮, পিএবিএক্স-৯৫৫৩৬৮০, ৭১১৫৬৫৭, ফ্যাক্স : ৯৫১৩৭০৮ বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন ঃ ৯৫৬৩১৫৭
ই-মেইল : bhorerdk@bangla.net, adbhorerdak@gmail.com,  Developed & Maintenance by i2soft
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি