আজ শুক্রবার, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২৪ নভেম্বর ২০১৭ খ্রিস্টাব্দ
ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন লাইভ টিভি লাইভ রেডিও সকল পত্রিকা যোগাযোগ
শিরোনাম : জিম্বাবুয়ের নতুন প্রেসিডেন্ট এমারসনের শপথ গ্রহণ       সততা ও উন্নয়নের কারণেই আগামীতেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা       চট্টগ্রাম পর্বের শুরুতে টসে হেরে ব্যাটিংয়ে খুলনা       ফতুল্লায় ভেকু চাপায় শ্রমিকের মৃত্যু, লাশ গুম চেষ্টার অভিযোগ       রংপুর-খুলনা ম্যাচ দিয়ে বিপিএলের চট্টগ্রাম পর্ব শুরু       ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মসজিদে বারী সিদ্দিকীর প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত       কালিয়াকৈরে ট্রেন-ট্রাক সংঘর্ষ, ট্রেনের সহকারী চালক নিহত      
মালয়েশিয়ায় রেকর্ড গড়ল বাংলাদেশ যুবারা
Published : Tuesday, 14 November, 2017 at 8:41 PM, Count : 35
মালয়েশিয়ায় রেকর্ড গড়ল বাংলাদেশ যুবারা স্পোর্টস রিপোর্টার : অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপের গ্রুপ পর্বের দ্বিতীয় ম্যাচে তওহীদ হৃদয়ের সেঞ্চুরি এবং সাইফ হাসানের দুর্দান্ত হাফসেঞ্চুরিতে মালয়েশিয়াকে বড় ব্যবধানে পরাজিত করেছে বাংলাদেশ। গতকাল মালয়েশিয়াকে ২৬২ রানের বড় ব্যবধানে পরাজিত করে বাংলাদেশের যুবারা।
নেপালের বিপক্ষে জয়ে যুব এশিয়া কাপ শুরু করেছিল বাংলাদেশ। মালয়েশিয়ার বিপক্ষে গতকাল দ্বিতীয় ম্যাচ তারা জিতলো দাপট দেখিয়ে। দুই ম্যাচে জিতে চার পয়েন্ট নিয়ে এ গ্রুপের পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে সাইফ হাসানরা। দুটি করে পয়েন্ট নিয়ে বাংলাদেশের পরে ভারত ও নেপাল। এদিকে এ ম্যাচেই মুমিনুল হক, সাব্বির রহমান ও এনামুল হক বিজয়দের গড়া রেকর্ড ভাঙলেন সাইফ হাসান, তৌহিদ হৃদয়রা। সাইফ হাসান ও তৌহিদ হৃদয়ের প্রায় দুইশ রানের জুটিতে ৬ উইকেটে ৩৩৫ রান করে বাংলাদেশ। এরপর বোলাররা স্বাগতিকদের আটকে দেয় ৮ উইকেটে ৭৩ রানে। ২৬২ রানের বিশাল ব্যবধানে জয় পায় বাংলাদেশ। এদিকে গতকাল মালয়েশিয়ায় অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপ টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় ম্যাচে স্বাগতিক দলের বিপক্ষে দলগত সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড গড়েছে বাংলাদেশ যুবারা। টস হেরে ব্যাটিং করতে নেমে ৬ উইকেটে ৩৩৫ রান করে বাংলাদেশ।
২০১০ সালে যুব বিশ্বকাপে নেপিয়ারে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ৮ উইকেটে ৩০৭ রান করেছিলেন মুমিনুল হক ও সাব্বির রহমানরা। সাত বছর পর তাদের রেকর্ড ভেঙে নতুন কীর্তি গড়লেন সাইফ হাসানের দল।  যুব ওয়ানডেতে এ নিয়ে তৃতীয়বারের মতো বাংলাদেশের রান তিনশ অতিক্রম করল। ২০১৫ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার ডারবানে মেহেদী হাসান মিরাজের দল ৭ উইকেটে করেছিল ৩০৪ রান।
আগের ম্যাচে নেপালের বিপক্ষে জিতলেও ব্যাট হাতে দ্যুতি ছড়াতে পারেননি ব্যাটসম্যানরা। বায়োসমাস ওভালে গতকালের শুরুটাও ছিল নড়বড়ে। ওপেনার পিনাক ঘোষ ১২ ও নাঈম শেখ ১৩ রানে সাজঘরে ফিরেন। ৩৬ রানে উদ্বোধনী ব্যাটসম্যানরা সাজঘরে ফেরার পর তৃতীয় উইকেটে পাল্টে যায় বাংলাদেশের ব্যাটিং চিত্র।  ১৯২ রানের জুটি গড়ে বাংলাদেশকে বড় সংগ্রহের ভিত এনে দেন অধিনায়ক সাইফ হাসান ও তৌহিদ হৃদয়। তৃতীয় উইকেট জুটিতে এটিও নতুন রেকর্ড। ২০১৬ সালে চট্টগ্রামে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে পিনাক ঘোষ ও নাজমুল হোসেন শান্ত ১৭৯ রান করেছিলেন। বগুড়ার ছেলে তৌহিদ হৃদয় প্রথমবারের মতো তিন অঙ্কের দেখা পেলেও সাইফ হাসান ১০ রানের আক্ষেপে পুড়েন। ১০৩ বলে ৫ চার ও ৩ ছক্কায় ৯০ রান করে হাফিজের বলে আউট হন। অন্যদিকে তৌহিদ হৃদয় ১২০ বলে করেন ১২০ রান। ৭টি চার ও ৪টি ছক্কায় নিজের ইনিংসটি সাজান হৃদয়। ম্যাচ সেরাও হন তৌহিদ হৃদয়। তাদের ফিরে যাওয়ার পর শেষ দিকে মালয়েশিয়ার বোলারদের ওপর আসল ঝড়টা তুলেন আমিনুল ইসলাম বিপ্লব। মাত্র ১৭ বলে ৩৯ রান করেন আমিনুল। মাটি কামড়ে দুইবার ও হাওয়ায় ভাসিয়ে বল চারবার মাঠের বাইরে পাঠান।  উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান মাহিদুল ইসলাম অঙ্কন ৯ বলে ২ ছক্কায় করেন ১৬ রান। সব মিলিয়ে দলগত ব্যাটিং নৈপুণ্যে পাহাড় সমান পুঁজি পায় বাংলাদেশ।  
বল হাতে মালয়েশিয়ার প্রতিটি বোলার রান বন্যায় ভেসেছেন। সাঈদ আজিজ ১০ ওভারে দিয়েছেন ৯৬ রান।  ৪ উইকেট পাওয়া মুহাম্মদ হাফিজ খায়ের ৭৮ রান দিয়েছেন ৯ ওভারে। বাংলাদেশ যুব দলের হয়ে সাখাওয়াত তিনটি এবং আফিফ নেন দুটি উইকেট। নাঈম ১০ ওভারের স্পেলে ৭টি মেডেন নেন।
বিশাল লক্ষ্যে নেমে ভালো শুরু করতে পারেনি মালয়েশিয়া। উইকেট যেমন পড়েছে, তেমনই রানের গতিও কমেছে। বাংলাদেশি বোলাররা নিয়ন্ত্রিত বোলিং করে তাদের আটকে দেন। নাঈম হাসান উইকেট না পেলেও ১০ ওভার বল করে মাত্র ৮ রান দেন, তার মেডেন ওভার ৭টি। অন্যদিকে মোহাম্মদ শওকত হোসেন তিনটি ও আফিফ হোসেন দুটি উইকেট নিয়ে বাংলাদেশের জয়ে অবদান রাখেন। যুব এশিয়া কাপে এটি বাংলাদেশের টানা দ্বিতীয় জয়। এর আগে প্রথম ম্যাচে রোমাঞ্চকর লড়াই শেষে নেপালকে ২ উইকেটে পরাজিত করে সাইফের দল। অন্যদিকে আগের দিন ভারতকে হারিয়ে চমকে দেয় নেপাল। টানা তৃতীয় জয়ের লক্ষ্যে আজ কিনারা ওভালে ভারতের মুখোমুখি হবেন সাইফরা।
সংক্ষিপ্ত স্কোর :
বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল : ৩৩৫/৬ (পিনাক ১২, নাইম শেখ ১৩, সাইফ ৯০, তৌহিদ ১২০, আফিফ ২১, আমিনুল ৩৯*, অঙ্কন ১৬, নাইম ৪*;আজিজ /৯৬, হাফিজ ৪/৭৮, খাইর ০/৪২, ভিরানদিপ ০/৩৮, ইউসুফ ০/৪৬, বিজয় ০/৩৩)
মালয়েশিয়া অনূর্ধ্ব-১৯ দল : ৭৩/৮ (আজিজ ১, ভিরানদিপ ৪৬, মালিক ৮, শানভিন্দর ৩, কুমার ০, বিজয় ২, হাফিজ ২, ইউসুফ ৪, খাইর ১*, জুলকারনাইন ০*; হাসান ০/১০, নাঈম ০/৮, শাখাওয়াত ৩/১৮, রনি ১/১১, আফিফ ২/১৯, সাইফ ১/৭)
ম্যান অব দি ম্যাচ : তৌহিদ হৃদয়
ফলাফল : বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল ২৬২ রানে জয়ী।
ভারতকে হারালো নেপাল
অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ভারতকে হারিয়ে চমক দেখিয়েছে নেপাল। আগের ম্যাচে এই দলটির বিপক্ষে বাংলাদেশকে জিততে শেষ ওভার পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয়েছিল।
যুব ক্রিকেটে ভারত বরাবর শক্তিশালী। নেপাল সেখানে এক সময় কিছুই ছিল না। কিন্তু ধীরে ধীরে দলটি নিজেদের অন্য উচ্চতায় নিয়ে এসেছে। অধিনায়ক দিপেন্দ্র সিংয়ের দাপটে নেপাল এদিন ১৯ রানে জয় পায়। তার ৮৮ রানের ইনিংসে ভর করে দলটি ৮ উইকেটে ১৮৫ রান তোলে। এরপর বল হাতে ৩৯ রানে নেন ৪ উইকেট। জবাব দিতে নেমে ভারত এক সময় এক উইকেট হারিয়ে ৯১ তুলে ফেলেছিল। সেখান থেকে দিপেন্দ্রর যাদুকরী বোলিংয়ে ১৬৬ রানে গুটিয়ে যায় ভারত। ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা এদিন শুরুতে দাপট দেখায়। হিমাংশু রানা ৩৮ বলে ৪৬ রান করে ভারতকে দুর্দান্ত শুরু এনে দেন। এক সময় ৯ উইকেট হাতে রেখে ২৭ ওভারে তাদের ৯৬ রান দরকার ছিল।ম্যাচ ঘুরে যায় দিপেন্দ্র যখন অথর্ব তাইদেকে সাজঘরে ফেরান। অধিনায়কের সঙ্গে ভারতকে কাঁপিয়ে দিতে ভূমিকা রাখেন পবন সারাফ। ২৪ রানে দুই উইকেট নেন তিনি। শালাব আলম ১১ রান খরচায় দুইজনকে ফেরান। টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশের কাছে দুই উইকেটে হারা নেপাল আজ মালয়েশিয়ার বিপক্ষে মাঠে নামবে। মালয়েশিয়াকে ২০২ রানে উড়িয়ে দেয়া ভারত একই দিন বাংলাদেশের মুখোমুখি হবে।



« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


কাগজে যেমন ওয়েবেও তেমন
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
সোস্যাল নেটওয়ার্ক
সম্পাদক, প্রকাশক ও মুদ্রাকর : কে.এম. বেলায়েত হোসেন
মেসার্স পিউকি প্রিন্টার্স, নব সৃষ্ট প্লট নং ২০, তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা থেকে মুদ্রিত এবং ৪-ডি, মেহেরবা প্লাজা, ৩৩ তোপখানা রোড, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত।
বার্তা বিভাগ : ৯৫৬৩৭৮৮, পিএবিএক্স-৯৫৫৩৬৮০, ৭১১৫৬৫৭, ফ্যাক্স : ৯৫১৩৭০৮ বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন ঃ ৯৫৬৩১৫৭
ই-মেইল : bhorerdk@bangla.net, adbhorerdak@gmail.com,  Developed & Maintenance by i2soft
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি