আজ বৃহস্পতিবার, ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২৩ নভেম্বর ২০১৭ খ্রিস্টাব্দ
ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন লাইভ টিভি লাইভ রেডিও সকল পত্রিকা যোগাযোগ
শিরোনাম : আজ রোহিঙ্গা ইস্যুতে সমঝোতা হলে কাল এমওইউ সই'       শ্রীপুর উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতিসহ গ্রেপ্তার ২        শার্শায় সাড়ে ৩৩ লাখ হুণ্ডির টাকাসহ ৪ পাচারকারী আটক       এসএসসি পরীক্ষা শুরু হচ্ছে ১ ফেব্রুয়ারি       নওগাঁয় চাকুরি জাতীয়করণের দাবিতে ইউসিসিএ কর্মচারীদের মানববন্ধন       আজ জহির রায়হানের ‘হারানো অধ্যায়’       কুষ্টিয়ার খোকসায় গৃহবধূকে কুপিয়েছে সাবেক স্বামী      
ঝুঁকি নিয়ে দখিনের নদীতে চলছেস্পিডবোট, বাড়ছে প্রাণহানি
Published : Wednesday, 15 November, 2017 at 6:32 PM, Count : 34
ঝুঁকি নিয়ে দখিনের নদীতে চলছেস্পিডবোট, বাড়ছে প্রাণহানিএম. মিরাজ হোসাইন, বরিশাল ব্যুরো : জীবন রক্ষাকারী সরঞ্জাম ছাড়াই বরিশালের বেপরোয়াভাবেই অব্যাহত রয়েছে বরিশালের অভ্যন্তরীণ নৌ-রুটগুলোতে স্পিডবোট চলাচল। আর তাই দুর্ঘটনায় মা-মেয়ে নিহত হওয়ার সাড়ে ১০ মাস পেরিয়ে গেলেও ফের একই নদীতে প্রাণ গেলো তিন সন্তানের এক জননীর। এ দুর্ঘটনার পর এবারেও সাময়িকভাবে বরিশাল থেকে অভ্যন্তরীণ রুটে বন্ধ রাখা হয়েছে স্পিডবোট চলাচল। আটক করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে স্পিডবোট মালিক সামিতির সভাপতিকে।
অল্প সময়ের মধ্যেই এসব সমস্যার সমাধান হবে বলে আশাবাদী রয়েছেন সংশ্লিষ্ট বোটচালক ও শ্রমিকরা। মুখে মুখে নিয়মনীতির কথা বললেও এর তোয়াক্কা না করে অদক্ষ চালক দিয়ে বোট চালনা, খুব জরুরি কাজে রাতের বেলায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা না নিয়ে বোট চালনা, ধারণ ক্ষমতার অতিরিক্ত যাত্রী বহন ও বাড়তি ভাড়া আদায়ের মতো কর্মকা  আবারো শুরু হয়ে যাবে। গত বছরের ২৩ ডিসেম্বর রাতে সাহেবেরহাট চ্যানেলে দুই বোটের সংঘর্ষে মা-মেয়ে নিহত হয়। এ দুর্ঘটনার পর প্রশাসন সন্ধ্যার পর থেকে বোট চালনার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন। যা মেনে নিয়েছিলেন বোট মালিক-শ্রমিকরা। তেমনি গত ১০ নভেম্বর রাতে ট্রলার আর স্পিডবোটের সংঘর্ষে যে দুর্ঘটনা ঘটেছে। সে রাতে বোট চালনার কোনো ইচ্ছে ছিলো না মালিক-শ্রমিকদের। তবে স্বজনের মৃত্যুর খবরে ভোলার উদ্দেশ্যে যেতে চাওয়া মানুষগুলোর অনুরোধেই বোট চালনার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। বরিশাল নৌ ফায়ার স্টেশনের কর্মকর্তা হানিফ মিয়া জানান, সন্ধ্যার পরে লাইটসহ প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম ছাড়া যেকোনো নৌ-যান চালনাই ঝুঁকিপূর্ণ। তবে দিন আর রাত বলে কোনো কথা নেই দ্রুতগামী ছোট নৌ-যান চালনার ক্ষেত্রে লাইফ জ্যাকেট শতভাগ নিশ্চিত করা প্রয়োজন। যা দুর্ঘটনাকবলিত বোটেরকারো শরীরেই ছিলো না। প্রতিটি বোটের ভেতরেই লাইফ জ্যাকেট আছে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। যাত্রাকালে বেশির ভাগ যাত্রীই শরীরের লাইফ জ্যাকেট পরতে ইচ্ছুক না। রাতের বেলা স্পিডবোট চালনা করা অনেক আগেই নিষিদ্ধ করা হয়েছে। গত ১০ নভেম্বরের দুর্ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার পাশাপাশি নিয়ম উপেক্ষাকারীদের আটক করা হয়েছে। স্পিডবোট চালনার অনুমতি যারা সেদিন দিয়েছিলেন তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া উচিত বলে জানিয়েছেন বরিশাল নৌ-পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুল মোতালেব।
বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষের নৌ-নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিভাগের উপ-পরিচালক আজমল হুদা মিঠু সরকার বলেন, যাত্রীবাহী বোট চালনার বিষয়টি মূলত তাদের আওতাভুক্ত নয়। বোট চালনার আগে চালকদের প্রশিক্ষণ ও সনদের ব্যবস্থা করা উচিত। প্রতিদিন বরিশালের ডিসি ঘাট থেকে ভোলা, বরিশাল সদর উপজেলার লাহারহাট থেকে ভোলা ও বুখাইনগর থেকে মেহেন্দিগঞ্জের উদ্দেশ্যে স্পিডবোট নিয়মিতভাবে যাত্রী নিয়ে চলাচল করে। অপরদিকে এসব ঘাট থেকে অনিয়মিতভাবে অভ্যন্তরীণ বিভিন্ন রুটে স্পিডবোট চলাচল করে থাকে। যে কাজে বরিশাল ও ভোলার প্রায় তিনশ’ স্পিডবোট নিয়োজিত রয়েছে।





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


কাগজে যেমন ওয়েবেও তেমন
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
সোস্যাল নেটওয়ার্ক
সম্পাদক, প্রকাশক ও মুদ্রাকর : কে.এম. বেলায়েত হোসেন
মেসার্স পিউকি প্রিন্টার্স, নব সৃষ্ট প্লট নং ২০, তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা থেকে মুদ্রিত এবং ৪-ডি, মেহেরবা প্লাজা, ৩৩ তোপখানা রোড, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত।
বার্তা বিভাগ : ৯৫৬৩৭৮৮, পিএবিএক্স-৯৫৫৩৬৮০, ৭১১৫৬৫৭, ফ্যাক্স : ৯৫১৩৭০৮ বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন ঃ ৯৫৬৩১৫৭
ই-মেইল : bhorerdk@bangla.net, adbhorerdak@gmail.com,  Developed & Maintenance by i2soft
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি