আজ বৃহস্পতিবার, ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২৩ নভেম্বর ২০১৭ খ্রিস্টাব্দ
ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন লাইভ টিভি লাইভ রেডিও সকল পত্রিকা যোগাযোগ
শিরোনাম : আজ রোহিঙ্গা ইস্যুতে সমঝোতা হলে কাল এমওইউ সই'       শ্রীপুর উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতিসহ গ্রেপ্তার ২        শার্শায় সাড়ে ৩৩ লাখ হুণ্ডির টাকাসহ ৪ পাচারকারী আটক       এসএসসি পরীক্ষা শুরু হচ্ছে ১ ফেব্রুয়ারি       নওগাঁয় চাকুরি জাতীয়করণের দাবিতে ইউসিসিএ কর্মচারীদের মানববন্ধন       আজ জহির রায়হানের ‘হারানো অধ্যায়’       কুষ্টিয়ার খোকসায় গৃহবধূকে কুপিয়েছে সাবেক স্বামী      
সেবা দিতে পারছেনা দেশের ৬৩ স্বল্প শয্যার হাসপাতাল
Published : Wednesday, 15 November, 2017 at 8:23 PM, Count : 27
বায়েজীদ মুন্সী : প্রয়োজন অনুযায়ী রোগীদের সেবা দিতে পারছে না দেশের বিভিন্ন স্থানে প্রতিষ্ঠিত স্বল্প শয্যার হাসপাতালগুলো। ১০ ও ২০ শয্যার এ হাসপাতালগুলোর অধিকাংশতেই নেই প্রয়োজনীয় ওষুধ ও যন্ত্রপাতি। পদায়ন করা হলেও অনুপস্থিত থাকছেন অনেক চিকিৎসক ও নার্স। ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়েছে কোনো কোনো হাসপাতালের ভবনও। আবার ভবন পরিত্যক্ত হবার ফলে কোনোটি পরিণত হয়েছে মাদকাসক্তদের আখড়ায়। বর্তমানে প্রয়োজনীয় সেবা দূরের কথা, পরামর্শ পর্যন্ত নিতে পারছে না রোগীরা।
স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, সারা দেশে প্রতিষ্ঠিত ৬৩ হাসপাতালের মধ্যে ৩৮টি ২০ শয্যাবিশিষ্ট ও ২৫টি ১০ শয্যাবিশিষ্ট। এগুলোর মধ্যে ২০ শয্যার হাসপাতাল রয়েছে ঢাকা জেলার কেরানীগঞ্জের জিনজিরা, ধামরাইয়ের কৃষ্ণনগর ও সাভারের আমিনবাজার, নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা ও সিদ্দিরগঞ্জ, শরীয়তপুরের তারাবুনিয়া, ফরিদপুর সদর, মাদারীপুরের কবিরাজপুর, ময়মনসিংহের ভালুকা ও প্রাণগঞ্জ, চট্টগ্রামের বিবিরহাট, সন্দ্বীপের হারামিয়া, রাউজানের সুলতানপুর ও লোহাগড়া, কুমিল্লার সোনাইমুড়ি, জোদ্দা, বাগমারা, দোনারচর, মালিগাঁও, মালিকাপুর ও শহীদনগর, ফেনীর মঙ্গলকান্দি ও মহীপাল, সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া, বগুড়ার শান্তাহার, নন্দীগ্রাম ও আলীরহাট, রাজশাহীর বাগমারা, মাগুরার বিনোদপুর ও বিরলপালিতা, ভোলার চরআইচা, পটুয়াখালীর কুয়াকাটা ও কাঁঠালতলী, বরগুনার তালতলী, সুনামগঞ্জের জগদ্দল এলাকায়।
ঢাকার কেরানীগঞ্জের হযরতপুর ও কু া, গোপালগঞ্জের গোপীনাথপুর, কক্সবাজারের সেন্টমার্টিন, রাঙামাটির কাপ্তাই, কুমিল্লার কালিকাপুর, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার গুইনাক, সিরাজগঞ্জের খোকসাবাড়ি, লালমনিরহাটের দহগ্রাম, কুড়িগ্রামের রায়গঞ্জ, গাইবান্ধার রামচাঁদপুর, ভোলার দৌলতখানের খায়েরহাট, বরিশালের বানারীপাড়ার চাখার, ঝালকাঠির কৃত্তিপাশা, বরগুনার কুকুয়া, হবিগঞ্জের ট্রমা সেন্টার ও সুনামগঞ্জের মধ্যনগর এলাকায় ১০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালগুলো অবস্থিত। আর এসব হাসপাতালগুলোর সবগুলোরই বেহাল অবস্থা বিরাজ করছে।
জানা গেছে, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন স্বাস্থ্য অর্থনীতি ইউনিট কয়েক মাস ধরে এগুলোর সার্বিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করছে। কীভাবে, কোন প্রক্রিয়ায় হাসপাতালগুলো কার্যকর করা যায় তা নিয়ে চিন্তাভাবনা করছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। এ নিয়ে সম্প্রতি বৈঠকও করে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। বৈঠকে হাসপাতালগুলোকে সচল করার লক্ষ্যে বেশ কিছু প্রস্তাব এসেছে। কেউ কেউ এগুলো পরিচালনার দায়িত্ব ব্যক্তিমালিকানাধীন কোনো প্রতিষ্ঠানকে দেয়ার প্রস্তাব করেছেন। কেউ কেউ এসব হাসপাতাল রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব স্থানীয় এমপিদের কাছে  দেয়ার প্রস্তাব করেছেন।
স্বাস্থ্য অর্থনীতি ইউনিটের মহাপরিচালক আসাদুল ইসলাম বলেন, হাসপাতালগুলোর সার্বিক অবস্থা জানার চেষ্টা করছি। যেসব হাসপাতাল ইতিমধ্যে পরিদর্শন করা হয়েছে, সেগুলোর মধ্যে কয়েকটির ভবন ব্যবহারের অনুপযোগী। কোনো কোনো চিকিৎসাকেন্দ্রে জনবল সংকট রয়েছে। এসব কারণে রোগীরাও হাসপাতালমুখী হচ্ছেন না।
হাসপাতালগুলো নিয়ে সরকারের নতুন পরিকল্পনা আছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, কোন প্রক্রিয়ায় হাসপাতালগুলো চালু করা যায়, তা নিয়ে আলোচনা চলছে। কেরানীগঞ্জের দুটি হাসপাতাল চালুর বিষয়ে স্থানীয় এমপি এবং জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ আগ্রহ দেখিয়েছেন। কিন্তু সরকারি কোনো প্রতিষ্ঠান চাইলেও দাতব্য প্রতিষ্ঠান কিংবা ব্যক্তিকে দেয়া যায় না।
এ প্রসঙ্গে স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ বলেন, জনগণের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে বিভিন্ন সময়ে এ হাসপাতালগুলো গড়ে তোলা হয়েছিল। কিন্তু জেলা ও উপজেলা হাসপাতালে কয়েক বছরে শয্যাসংখ্যা বাড়ানোয় চিকিৎসক, নার্সসহ বাড়তি জনবলের প্রয়োজন দেখা দেয়। তখন স্বল্প শয্যার ওইসব হাসপাতাল থেকে জনবল প্রত্যাহার করা হয়। তবে ১০ হাজার চিকিৎসক নিয়োগের প্রক্রিয়া চলছে। এ নিয়োগ দেয়া হলে চিকিৎসকদের ওইসব হাসপাতালে পদায়ন করা হবে। তখন সংকট দূর হবে বলে জানান তিনি।






« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


কাগজে যেমন ওয়েবেও তেমন
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
সোস্যাল নেটওয়ার্ক
সম্পাদক, প্রকাশক ও মুদ্রাকর : কে.এম. বেলায়েত হোসেন
মেসার্স পিউকি প্রিন্টার্স, নব সৃষ্ট প্লট নং ২০, তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা থেকে মুদ্রিত এবং ৪-ডি, মেহেরবা প্লাজা, ৩৩ তোপখানা রোড, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত।
বার্তা বিভাগ : ৯৫৬৩৭৮৮, পিএবিএক্স-৯৫৫৩৬৮০, ৭১১৫৬৫৭, ফ্যাক্স : ৯৫১৩৭০৮ বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন ঃ ৯৫৬৩১৫৭
ই-মেইল : bhorerdk@bangla.net, adbhorerdak@gmail.com,  Developed & Maintenance by i2soft
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি