আজ বুধবার, ৪ মাঘ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ১৭ জানুয়ারী ২০১৮ খ্রিস্টাব্দ
ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন লাইভ টিভি লাইভ রেডিও সকল পত্রিকা যোগাযোগ
শিরোনাম : না.গঞ্জে আইভী-শামীম সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ, আহত অর্ধশত       স্বামী হত্যায় স্ত্রীসহ তিন জনের ফাঁসির রায়       গোপালগঞ্জে আরমানুলের তৈরি এয়ারপ্লেন আকাশে       ডিএনসিসি নির্বাচন স্থগিত চেয়ে হাইকোর্টে রিট, আদেশ কাল       সরকারের আশ্বাসে অনশন ‌ভাঙলেন স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী শিক্ষকরা       প্রণব মুখার্জিকে ডি-লিট ডিগ্রি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের       একনেকে ১৮৪৮৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ১৪ প্রকল্প অনুমোদন      
এবার আমরণ অনশনে যাচ্ছেন এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা
Published : Saturday, 13 January, 2018 at 8:42 PM, Count : 60
স্টাফ রিপোর্টার : এবার আমরণ অনশনে যাচ্ছেন এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা। এ পর্যায়ের শিক্ষকরা দেশের সব এমপিওভুক্তি স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের দাবিতে আন্দোলন করছেন।
এ দাবিতে গত বুধবার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আন্দোলন শুরু করলেও ওই দিন রাতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান নেন শিক্ষকরা। পরদিন বৃহস্পতিবার থেকে অবস্থান ধর্মঘট পালন করেন। অনেক শিক্ষক সারারাত সেখানে ছিলেন। গতকাল শুক্রবারও অবস্থান ধর্মঘট পালন করেন। সারা দেশের এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পাঁচটি সংগঠন এক জোট হয়ে ‘বেসরকারি শিক্ষা জাতীয়করণ লিয়াঁজো ফোরামের’ উদ্যোগে এ আন্দোলন শুরু করেছে।
সংগঠনের আহ্বায়ক অধ্যক্ষ মো. নজরুল ইসলাম রনি বলেন, বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের দাবিতে গত বৃহস্পতিবার থেকে অবস্থান ধর্মঘট শুরু হয়। ওই দিন শিক্ষকরা সারারাত কনকনে শীতের মধ্যেও প্রেসক্লাবের সামনে রাত কাটিয়েছেন। সারাদেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা প্রতিদিন যোগ দিচ্ছেন। তিনি বলেন, জাতীয়করণ ছাড়া আমরা ঘরে ফিরে যাব না। ১৩ জানুয়ারির মধ্যে আমাদের দাবি মেনে নেয়া না হলে ১৪ জানুয়ারি দেশের ২৬ হাজার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে তালা ঝুলিয়ে শিক্ষক-কর্মচারীরা আমরণ অনশনে বসবেন।
আন্দোলনকারী শিক্ষকরা বলেন, শিক্ষা ব্যবস্থায় বৈষম্যদূরীকরণে এমপিওভুক্ত শিক্ষকরা জাতীয়করণের দাবিতে আন্দোলনে নেমেছেন। সারা দেশের প্রায় পাঁচ লাখ শিক্ষক-কর্মচারী এ আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন। তারা বলেন, দেশের ৯৭ শতাংশ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বেসরকারিভাবে পরিচালিত হচ্ছে। এসব প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা নামে মাত্র বেতন-ভাতা পাচ্ছেন। তা দিয়েই মানবেতন জীবনযাপন করতে হচ্ছে। অথচ ৩ শতাংশ সরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা উচ্চমানের বেতন-ভাতা পাচ্ছেন। এ কারণে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে জাতীয়করণ করতে হবে। এ দাবিতে আমরা রাজপথে নেমেছি।
শিক্ষক নেতারা বলেন, সরকারের নীতি-নির্ধারক প্রায় সব পর্যায়ে লিখিতভাবে আমাদের দাবিগুলো তুলে ধরেছি। গত দুদিন ধরে শীতের মধ্যে রাস্তায় বসে কষ্ট করে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছি। তারপরও আমাদের দিকে মুখ তুলে দেখা হচ্ছে না। এ কারণে কঠোর আন্দোলনে যাওয়া ছাড়া আমাদের আর কোনো পথ নেই।






« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


কাগজে যেমন ওয়েবেও তেমন
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
সোস্যাল নেটওয়ার্ক
সম্পাদক, প্রকাশক ও মুদ্রাকর : কে.এম. বেলায়েত হোসেন
মেসার্স পিউকি প্রিন্টার্স, নব সৃষ্ট প্লট নং ২০, তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা থেকে মুদ্রিত এবং ৪-ডি, মেহেরবা প্লাজা, ৩৩ তোপখানা রোড, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত।
বার্তা বিভাগ : ৯৫৬৩৭৮৮, পিএবিএক্স-৯৫৫৩৬৮০, ৭১১৫৬৫৭, ফ্যাক্স : ৯৫১৩৭০৮ বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন ঃ ৯৫৬৩১৫৭
ই-মেইল : bhorerdk@bangla.net, adbhorerdak@gmail.com,  Developed & Maintenance by i2soft
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি