আজ মঙ্গলবার, ৩ মাঘ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ১৬ জানুয়ারী ২০১৮ খ্রিস্টাব্দ
ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন লাইভ টিভি লাইভ রেডিও সকল পত্রিকা যোগাযোগ
শিরোনাম : সরকারের আশ্বাসে অনশন ‌ভাঙলেন স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী শিক্ষকরা       প্রণব মুখার্জিকে ডি-লিট ডিগ্রি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের       একনেকে ১৮৪৮৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ১৪ প্রকল্প অনুমোদন       ৮ ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল       সিদ্ধান্তে অটল শাকিব খান, সমঝোতা চান অপু বিশ্বাস       চাঁদপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৩        আজ আ.লীগের মেয়র প্রার্থীর নাম ঘোষণা      
এনায়েতপুরে ওরশ উপলক্ষে জমে উঠছে মেলা
দর্শনার্থীদের উপচেপড়া ভিড়
Published : Sunday, 14 January, 2018 at 6:37 PM, Count : 12
এনায়েতপুরে ওরশ উপলক্ষে জমে উঠছে মেলাসিরাজগঞ্জ সংবাদদাতা : সিরাজগঞ্জের এনায়েতপুরে খাজা ইউনুছ আলী এনায়েতপুরী (রঃ) বাৎসরিক ওরশ উপলক্ষে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ঐতিহ্যের  ১০৩ তম বাৎসরিক মেলা। কি নেই এখানে। ঝুরি-সাজ, মিষ্টি, জিলাপী, সব ধরনের পোশাক, খেলনা, চুরি-মালা, আসবাব সহ ছোট-বড় সকলের নিত্য প্রয়োজনীয় যাবতীয় জিনিস-পত্র।
প্রায় ১ কিলোমিটার ব্যাপী এই মেলায় এসব পসরার প্রায় সহ¯্রাদিক দোকানে প্রতিদিন ভিড় করছে অর্ধলক্ষাধিক মানুষ। ৫০/৬০ বছর আগে ২ আনা দিয়ে বস্তা ভরে যাবতীয় খাবার ও জিনিস-পত্র কিনে নিয়ে যাওয়া হাজার-হাজার বৃদ্ধরাও মেলায় আসার লোভ সামলাতে পারেনি। মেলা উপলক্ষে এলাকার প্রতিটি বাড়ি-বাড়িতে নায়রে আনা হয়েছে গায়ের ঝি-বেটিদের। চলছে পিঠা পুলির ধুম। এ যেন দ্বিতীয় ঈদ উৎসব। উপমহাদেশের প্রখ্যাত ওলিয়ে-কামেল হযরত শাহ সুফী খাজা বাবা ইউনুছ আলী এনায়েতপুরী (রঃ) ২০১৮ ওরশ উপলক্ষে প্রতিবারের ন্যায় গত ৫ জানুয়ারী থেকে যমুনার তীর ঘেঁষে বিশাল এলাকা জুড়ে বসেছে ১২দিন ব্যাপী ১০৩ তম উত্তরবঙ্গের বৃহৎ মেলা। সহ¯্রাদিক দোকানের এ মেলায় মুরি, ঝুরি-সাজ, মোয়া-মুরকী, মিষ্টি, জিলাপী, খাবার হোটেল, আসবার, ক্রোকারিজ সামগ্রী, চুরি-মালা, নানান রকমের খেলনা, ব্যাগ, শীতবস্ত্র, কোম্বল, দা-কুড়াল, শাড়ী-লুঙ্গী সহ নিত্য প্রয়োজনীয় নানা পসরা সাজিয়ে বসেছে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা হাজারো দোকানীরা। ভোর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত সুষ্ঠ পরিবেশে চলছে এখানে কেনা-কাটা। এতে সিরাজগঞ্জ, টাঙ্গাইল, পাবনা, মানিকগঞ্জ জেলার বিভিন্ন বয়সী ক্রেতাদের পদচারনায় মুখরিত হচ্ছে ঐতিহ্যের মেলা প্রাঙ্গন। মেলাকে কেন্দ্র করে এলাকার ধনী-গরীব সকলেই ৬ মাস আগে থেকেই টাকা জমানো শুরু করে। কারণ কিনতে হবে প্রয়োজনের পছন্দের জিনিস। শৈশবের সেই মেলার আনন্দের লোভ সামলাতে না পেরে বৃদ্ধ অনেকেই এসেছেন ১০৩ বছরের মেলা দেখতে। 


« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


কাগজে যেমন ওয়েবেও তেমন
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
সোস্যাল নেটওয়ার্ক
সম্পাদক, প্রকাশক ও মুদ্রাকর : কে.এম. বেলায়েত হোসেন
মেসার্স পিউকি প্রিন্টার্স, নব সৃষ্ট প্লট নং ২০, তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা থেকে মুদ্রিত এবং ৪-ডি, মেহেরবা প্লাজা, ৩৩ তোপখানা রোড, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত।
বার্তা বিভাগ : ৯৫৬৩৭৮৮, পিএবিএক্স-৯৫৫৩৬৮০, ৭১১৫৬৫৭, ফ্যাক্স : ৯৫১৩৭০৮ বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন ঃ ৯৫৬৩১৫৭
ই-মেইল : bhorerdk@bangla.net, adbhorerdak@gmail.com,  Developed & Maintenance by i2soft
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি