আজ সোমবার, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ খ্রিস্টাব্দ
ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন লাইভ টিভি লাইভ রেডিও সকল পত্রিকা যোগাযোগ
শিরোনাম : চলে গেলেন রংপুরের সাবেক মেয়র ঝন্টু       খালেদার জামিনের আদেশ নথি আসার পর       জনতা ব্যাংকের চেয়ারম্যান হেদায়েত উল্লাহ       কোটা পদ্ধতির সংস্কার দাবিতে নতুন কর্মসূচি ঘোষণা       নবীগঞ্জে অজ্ঞাত কিশোরীর লাশ উদ্ধার       মণিরামপুরে ৪ দিন ধরে শিশু শ্রমিক নিখোঁজ       দুই সিটির উপ-নির্বাচন স্থগিত, রুল নিষ্পত্তির নির্দেশ      
আলুর ফলন ভালো, চাষিরা খুশি
Published : Wednesday, 14 February, 2018 at 6:19 PM, Count : 46
আলুর ফলন ভালো, চাষিরা খুশিমিজানুর রহমান, তানোর (রাজশাহী) থেকে : রাজশাহীর তানোর উপজেলার প্রান্তিক অঞ্চলের সবজি চাষিরা ব্যস্ত সময় পার করছেন। উপজেলার ৭ ইউনিয়ন ও ২ পৌরসভায় উচ্চ ও সমতল ভূমিতে আগাম ডায়মন্ড, কার্ডিনাল ও দেশি গোল আলু, বেগুন, টমেটো, মটর শুটি, মরিচ, সরিষা, পটল, গম ইত্যাদি চাষ করে ভালো ফলনের আশায় দিনের পর দিন কাজ করে যাচ্ছেন চাষিরা।
অনেক চাষি এক ফসলি জমিতে তিন ফসল চাষ করছেন। মাচান এ ঝুলছে শিম, লাউ, বরবটি, বেগুন, আর মাটির নিচে আলু। এ ধরণের সবজি ফলিয়ে উপজেলার অনেক সবজি চাষি স্বাবলম্বীও হয়েছেন। ক্ষেতের এসব সবজি চাষ করে সাংসারিক খরচ মিটিয়ে বাড়তি কিছুও সঞ্চয় করছেন। শ্রম ও খরচ কম হওয়ায় এ ধরণের সবজি চাষ তানোরে সবজি চাষিদের মধ্যে ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে। অপরদিকে এবার আলু চাষিদের ক্ষেতে তেমন রোগবালাই না দেখা দেয়ায় ও আলুর গাছ ভালো হওয়ায় বাম্পার ফলনের আশা করছেন চাষিরা।
উপজেলা উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা ডিএফএম এমদাদুল হক জানান, এক ফসলি জমি হয়েছে তিন ফসলি। যে জমিতে আগে মাত্র একবার ধানি ফসল বা সবজি ফলতো এখন সে জমিতে আলু/সবজি, বোরো ও আমন ধান চাষ হচ্ছে। সম্প্রতি উপজেলার তালন্দ, গোকুল, চাপড়া, গুবিরপাড়া, আমশো, জিওল, কালীগঞ্জ, মাসিন্দা এলাকার ফসলে মাঠে গিয়ে দেখা যায়, চারিদিকে সবুজের সমারহ শীতকালীন সবজি আলুর চাষ। কিছু পরিপক্ব আবার কিছু এখনো অপরিপক্ব ক্ষেত। যারা আগাম আলু চাষ করছেন তাদের ফলন যথেষ্ট হয়েছে। আগাম যারা চাষ করেছেন তারা এখন ক্ষেত থেকে আলু তুলছেন।
তানোর পৌর এলাকার চাপড়া গ্রামের আগাম আলু চাষি সাইদুর রহমান জানান, তিনি ২দিন আগে ১বিঘা জমির চাষকৃত ডায়মন্ড আলু ক্ষেত থেকে তুলে বাজারে বিক্রি করেছেন। প্রতি কেজি আলু বিক্রি হচ্ছে ১০টাকা কেজি দরে। এ ক্ষেত করতে তার শ্রমসহ মোট খরচ হয়েছে ২৫ হাজার টাকা। তিনি ৪০ হাজার টাকার আলু বিক্রি করেছেন। আলু বিক্রি তার আনুমানিক ১৫ হাজার টাকা আয় হয়েছে বলে জানান।
উপজেলার কালনা গ্রামের সরিষা চাষি সাইদ রানা জানান, প্রতি বছরের ন্যায় এ বছরও ৮বিঘা জমিতে বারি-১৪জাতের সরিষা জমিতে চাষ করেছেন। এ পর্যন্ত ২বিঘা জমির সরিষা মাড়ায় শেষে ১০মন সরিষা পেয়েছেন। বাজারে সরিষা প্রতি মন বিক্রি হচ্ছে ১৯০০ টাকা। খরচবাদে প্রতি বিঘায় ৮ হাজার টাকা আয় হবে বলে জানান তিনি।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম প্রতিবেদককে জানান, চলতি বছরে তানোরে আলু চাষ করা হয়েছে ১৩ হাজার ২শ’ ১০ হেক্টর জমিতে। আগাম যারা আলু চাষ করেছেন তাদের বাম্পার ফলন হয়েছে। এছাড়া উপজেলায় সরিষা চাষে কৃষকরা লাভবান হবেন।





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


কাগজে যেমন ওয়েবেও তেমন
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
সোস্যাল নেটওয়ার্ক
সম্পাদক, প্রকাশক ও মুদ্রাকর : কে.এম. বেলায়েত হোসেন
মেসার্স পিউকি প্রিন্টার্স, নব সৃষ্ট প্লট নং ২০, তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা থেকে মুদ্রিত এবং ৪-ডি, মেহেরবা প্লাজা, ৩৩ তোপখানা রোড, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত।
বার্তা বিভাগ : ৯৫৬৩৭৮৮, পিএবিএক্স-৯৫৫৩৬৮০, ৭১১৫৬৫৭, ফ্যাক্স : ৯৫১৩৭০৮ বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন ঃ ৯৫৬৩১৫৭
ই-মেইল : bhorerdk@bangla.net, adbhorerdak@gmail.com,  Developed & Maintenance by i2soft
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি