আজ সোমবার, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ খ্রিস্টাব্দ
ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন লাইভ টিভি লাইভ রেডিও সকল পত্রিকা যোগাযোগ
শিরোনাম : চলে গেলেন রংপুরের সাবেক মেয়র ঝন্টু       খালেদার জামিনের আদেশ নথি আসার পর       জনতা ব্যাংকের চেয়ারম্যান হেদায়েত উল্লাহ       কোটা পদ্ধতির সংস্কার দাবিতে নতুন কর্মসূচি ঘোষণা       নবীগঞ্জে অজ্ঞাত কিশোরীর লাশ উদ্ধার       মণিরামপুরে ৪ দিন ধরে শিশু শ্রমিক নিখোঁজ       দুই সিটির উপ-নির্বাচন স্থগিত, রুল নিষ্পত্তির নির্দেশ      
আগামীকাল আপিলের প্রস্তুতি খালেদার
Published : Wednesday, 14 February, 2018 at 8:41 PM, Count : 33
স্টাফ রিপোর্টার : জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিচারিক আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে আগামীকাল বৃহস্পতিবার হাইকোর্টে আপিল করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। আইনজীবীরা বলছেন, আজ বুধবার নিম্ন আদালতের রায়ের ‘সার্টিফায়েড কপি’ পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার কারা কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলেছেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ও আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া। সেখান থেকে বেরিয়ে তিনি সাংবাদিকদের বলেছেন, তারা বিশেষ জজ আদালত-৫-এ যোগাযোগ করেছেন। তাদের বলা হয়েছে, আজ বুধবার কপি পাওয়া যাবে। কপি পেলে তারা আগামীকাল বৃহস্পতিবার আপিল করবেন। তবে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলা ছাড়া আর কোন মামলায় খালেদা জিয়াকে গ্রেফতার দেখানো হয়নি বলেও কারা ফটক থেকে ফিরে বলেন সানাউল্লাহ মিয়া। একই কথা জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালও। দুটি মামলায় তার বিরুদ্ধে হাজিরা পরোয়ানা (প্রোডাকশন ওয়ারেন্ট) রয়েছে। উনি বর্তমানে জামিনে রয়েছেন। যদি তিনি নিয়মিত এসব মামলায় হাজিরা দেন তাহলে আর গ্রেফতার দেখানো লাগবে না।
বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ৩ মামলায় ওকালতনামায় সই নিতে গতকাল দুপুর ১২টায় কারা ফটকে যান অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়াসহ ৪ আইনজীবী। জেল কর্তৃপক্ষ ওকালতনামার কপি গ্রহণ করেছে। আইনজীবীরা ওকালাতনামায় সই নিতে বেগম খালেদা জিয়ার সাক্ষাতের আবেদন করেন। তখন ওকালতনামায় বেগম জিয়ার সই করিয়ে রাখবেন বলে জানিয়েছে কারা কর্তৃপক্ষ। প্রায় ৪৫ মিনিট পর তারা কারা অধিদফতর থেকে কারাগারের মূল ফটকে এসে অপেক্ষা করেতে থাকেন। কিন্তু খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করার অনুমতি না মেলায় বেলা ৩টার দিকে ফিরে যান। এই আইনজীবী আরো জানান, তারা কিছু ওকালতনামা এনেছিলেন। খালেদা জিয়ার সইয়ের জন্য সেগুলো কারা কর্তৃপক্ষকে দিয়েছেন তারা। কারা কর্তৃপক্ষ এগুলো গ্রহণ করেছে। তারা বলেছে, এগুলোতে স্বাক্ষর নিয়ে পরে আমাদের ফেরত দেবে। সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সানাউল্লাহ মিয়া বলেন, খালেদা জিয়াকে অন্য মামলায় গ্রেফতার দেখানোর যে খবর বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে এসেছে তা সঠিক নয়। আমরা কারা কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করে জানতে চেয়েছি, বিভিন্ন গণমাধ্যমে যে খবর এসেছে- তা আসলে ঠিক কিনা। তারা আমাদের জানিয়েছে, তার বিরুদ্ধে সে রকম কোনো অর্ডার আসেনি। সামনে গ্যাটকো, বড়পুকুরিয়াসহ তিনটি মামলায় খালেদা জিয়ার হাজিরার তারিখ রয়েছে। তবে এই মামলাগুলোতে খালেদা জিয়াকে নিজে উপস্থিত থাকতে হয় না। আইনজীবীর মাধ্যমেই তিনি হাজিরা দিতে পারেন বলে সানাউল্লাহ মিয়া জানান।
??এদিকে গতকাল মঙ্গলবার সচিবালয়ে নিজ কার্যালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে আর কোন মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়নি। মন্ত্রী বলেন, জিয়া অরফারেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলা ছাড়াও খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে শাহবাগ থানায় দায়ের করা বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি দুর্নীতি মামলা ও তেজগাঁও থানায় দায়ের করা গ্যাটকো দুর্নীতি মামলা রয়েছে। ওই দুটি মামলায় তার বিরুদ্ধে হাজিরা পরোয়ানা (প্রোডাকশন ওয়ারেন্ট) রয়েছে। উনি বর্তমানে জামিনে রয়েছেন। যদি তিনি নিয়মিত এসব মামলায় হাজিরা দেন তাহলে আর গ্রেফতার দেখানো লাগবে না। এর বাইরে আর কোনও মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসনকে শ্যোন অ্যারেস্ট দেখানো হয়নি বলে জানান তিনি। মন্ত্রী বলেন, সংবাদমাধ্যমে খালেদা জিয়াকে শ্যোন অ্যারেস্টের যে খবর বেরিয়েছে তা সঠিক নয়।
সুপ্রিম কোর্টের একজন আইনজীবী জানিয়েছেন, প্রথমে রায়ের বিরুদ্ধে আপিল আবেদন করা হবে। এরপর জামিন আবেদন করা হবে। ওই আইনজীবীর মতে, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন জামিন পাওয়ার যোগ্য। কেননা এ মামলায় খালেদা জিয়ার সাজার মেয়াদ কম। তার সামাজিক অবস্থা, একজন সাবেক প্রধানমন্ত্রী তিনি। এ ছাড়া একজন নারী, তার বয়স ও স্বাস্থ্যগত বিষয়টি জামিন পাওয়ার ক্ষেত্রে আদালতের বিবেচনার বিষয় হবে। ফলে এ মামলায় জামিন পাওয়া নিয়ে তারা চিন্তিত নন। ওই আইনজীবীর মতে, কয়েকটি মামলায় খালেদা জিয়াকে আদালতে হাজির হতে বলা হয়েছে। অবস্থা দেখে মনে হচ্ছে, সরকার চাচ্ছে না কেবল জিয়া অরফানেজ মামলায় খালেদা জিয়া জামিন পেয়ে বেরিয়ে যাক। রাষ্ট্রপক্ষ বিভিন্ন মামলায় খালেদা জিয়াকে গ্রেফতার দেখিয়ে তার কারাবাস দীর্ঘ করতে পারে বলে তাঁর ধারণা।
কারাগারের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা তিনটি ওকালত নামা নিয়ে এসেছিলেন। সেগুলো গ্রহণ করে ‘ভেতরে’ পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে।
জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছর সশ্রম কারাদ  দিয়েছেন আদালত। এ ছাড়া প্রায় ২ কোটি ১১ টাকা জরিমানাও করা হয়েছে। এ মামলায় খালেদা জিয়ার ছেলে তারেক রহমানকে ১০ বছরের জেল ও সমপরিমাণ অর্থ জরিমানা করা হয়েছে।






« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


কাগজে যেমন ওয়েবেও তেমন
সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
সোস্যাল নেটওয়ার্ক
সম্পাদক, প্রকাশক ও মুদ্রাকর : কে.এম. বেলায়েত হোসেন
মেসার্স পিউকি প্রিন্টার্স, নব সৃষ্ট প্লট নং ২০, তেজগাঁও শিল্প এলাকা, ঢাকা থেকে মুদ্রিত এবং ৪-ডি, মেহেরবা প্লাজা, ৩৩ তোপখানা রোড, ঢাকা-১০০০ থেকে প্রকাশিত।
বার্তা বিভাগ : ৯৫৬৩৭৮৮, পিএবিএক্স-৯৫৫৩৬৮০, ৭১১৫৬৫৭, ফ্যাক্স : ৯৫১৩৭০৮ বিজ্ঞাপন ও সার্কুলেশন ঃ ৯৫৬৩১৫৭
ই-মেইল : bhorerdk@bangla.net, adbhorerdak@gmail.com,  Developed & Maintenance by i2soft
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি